মুসলিম বলে হেনস্তা করায় আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় ওজিলের

বর্ণবিদ্বেষের কারণ দেখিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসর নিলেন মেসুট ওজিল। রাশিয়া বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্ব থেকে জার্মানি ছিটকে যাওয়ার কারণ হিসাবে দায়ী করা হয়েছিল মাঝমাঠে ওজিলের নিষ্প্রভ পারফরম্যান্সকে।

দক্ষিণ কোরিয়ার বিরুদ্ধে শেষ গ্রুপ ম্যাচে হারের পর গ্যালারিতে উপস্থিত সমর্থকদের সঙ্গে ঝামেলাতেও জড়ান আর্সেনাল তারকা।

রোববার নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে ওজিল জানিয়ে দিলেন, আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসর নিচ্ছেন তিনি। লম্বা এক বিবৃতিতে জার্মানির বিরুদ্ধে বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ তুলে ওজিল পোস্ট করেন, “অনেক ভাবনাচিন্তার পর আমি আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসর নিতে বাধ্য হলাম। বিশ্বকাপে আমার সঙ্গে যা হয়েছে সেটার পর আর জার্মানির হয়ে খেলব না।

জার্মানির বর্ণবিদ্বেষের আবহে আমার মনে হয়েছে এটাই সঠিক সিদ্ধান্ত। এক সময় গর্ব হত জার্মান জার্সি পরে মাঠে নামলে। এখন ছবিটা পুরো আলাদা। সিদ্ধান্তটা খুবই কঠিন। কিন্তু বিদায়বেলায় এটাই বলতে চাই, আমি সব সময় দেশের জন্য নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছি।” কয়েক দিন আগে তুরস্কের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ছবি পোস্ট করে বিতর্কে পড়েন ওজিল।

জার্মান ফেডারেশন থেকে তাঁকে সতর্কও করা হয়। যে ঘটনার কথা তুলে বিবৃতিতে ওজিল লেখেন, ‘জার্মান ফুটবল ফেডারেশনের উচ্চপদস্থ কর্তারা যেমনভাবে আমার সঙ্গে আচরণ করেছেন সেটা মানা যায় না। সবাই জানে আমি তুরস্কের বংশোদ্ভূত। তাও আমাকে রাজনৈতিক প্রচারে জড়িয়ে ফেলা হয়। আর ফুটবলে বর্ণবিদ্বেষের জায়গা নেই।’

জার্মানির হয়ে মোট ৯২ ম্যাচ খেলেছেন পাঁচবারের বর্ষসেরা জার্মান ফুটবলার। ২০১০ বিশ্বকাপে অনামী তারকা হিসাবে খেলতে এলেও টুর্নামেন্ট শেষে ওজিল হয়ে উঠেছিলেন বিশ্বের সেরা তারকাদের মধ্যে একজন। ২০১৪-তে জার্মানির বিশ্বকাপ জয়ের পিছনে ওজিল ছিলেন অন্যতম অস্ত্র।

কিন্তু গত কয়েক বছরে ওজিলের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে কঠিন, পরিস্থিতিতে মাঝে মাঝে হারিয়ে যান ম্যাচ থেকে। এ বারও বিশ্বকাপ শেষে ওজিলের প্রাক্তন কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গারও বলেছিলেন, “ওজিলকে দেখে মনে হল এ বার বিশ্বকাপে সেরাটা দেয়নি জার্মানির হয়ে।”

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*