সুপারস্টার সাকিবের জন্য দুঃসংবাদ

দরজায় কড়া নাড়ছে ঈদ। প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শনের জন্য প্রস্তুত ঈদ উপলক্ষে নির্মিত ছবিগুলো। চলচ্চিত্র ব্যবসায়ীরাও শেষ মুহুর্তের ভীষণ ব্যস্ততা পার করছেন। আর কোন প্রেক্ষাগৃহে কোন চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে এ নিয়ে ব্যবসায়ীদের মধ্যে চলছে স্নায়ুযুদ্ধ। ঢাকার শহর থেকে শুরু করে প্রত্যন্ত গ্রামের অলিগলিতে দেখা যাচ্ছে ছবির পোস্টার।

কিন্তু হঠাৎ করেই জটিলতা সৃষ্টি হওয়ায় এখন সম্ভাব্য ঈদের ছবিগুলো নিয়ে দ্বিধা অনেকের মনে। শেষ নাগাদ ঈদে বড় পর্দায় কয়টি নতুন ছবি আসছে, তা স্পষ্ট নয় এখনো।

যদিও শুরু থেকেই শোনা যাচ্ছিল এ বছর ঈদুল ফিতরে দেশজুড়ে পাঁচ থেকে ছয়টি ছবি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। তবে সেই চিত্র বদলে তিনটি ছবি নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছৈ। আপাতত শুধু তিনটি ছবিই চূড়ান্ত হয়েছে ঈদের জন্য। এগুলো হলো: ‘পোড়ামন ২’, ‘চিটাগাংইয়া পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’ ও ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’। বাকি তিন ছবি ‘সুপার হিরো’, ‘ভাইজান এল রে’ ও ‘সুলতান’-এর মুক্তি নিয়ে ঝটিলতা দেখে দিয়েছে। যার কারণে শাকিবের জন্য এক প্রকার যেন দুঃসংবাদ বয়ে আনলো।

সরকারের রাজস্ব ও ভ্যাট ফাঁকি দিয়ে অনুমতি ছাড়া অবৈধ পথে টাকা নিয়ে ২০ দিন দেশের বাইরে শুটিং করার অভিযোগ উঠেছে সুপার হিরো ছবির বিরুদ্ধে। এক প্রযোজকের করা রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিদেশি ছবি দেশে আমদানি করে মুক্তির ওপর স্থগিতাদেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ। এতে করে ঈদের জন্য আমদানি করা কলকাতার ছবি ভাইজান এল রে ও সুলতান-এর মুক্তিও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। তবে আদালতের স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেছে প্রদর্শক সমিতি।

আজ সোমবার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে আপিলের শুনানি হওয়ার কথা। যদি মুক্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়া ছবিগুলোর জটিলতা না কাটে, তাহলে আসছে ঈদে এ ছবিগুলো দেখা যাবে না প্রেক্ষাগৃহে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*