ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে আটক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দ্বিতীয় শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। ওই শিশুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে জেলা শহরের পাওয়ার হাউস রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, জেলা শহরের পাওয়ার হাউস রোড এলাকায় তোফায়েল আজম কিন্ডারগার্টেনের সামনে ডাব বিক্রি করেন শিমরাইলকান্দি দক্ষিণপাড়া এলাকার বাসিন্দা বাচ্চু মিয়া (৬০)। শনিবার বিকেলে বাচ্চুর কাছ থেকে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির এক ছাত্রী ডাব কিনে বাড়ি যায়। পানি খেয়ে ডাবের খোসা ফিরিয়ে দিতে আবার বাচ্চুর কাছে যায় শিশুটি। এ সময় শিশুটিকে ফুসলিয়ে কিন্ডারগার্টেনের সামনে একটি পরিত্যক্ত টিনের ঘরের ভেতরে নিয়ে যান বাচ্চু।

সেখানে মেয়েটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন বাচ্চু। কিন্তু রাস্তার পাশের ওই ঘরে শিশুটি চিৎকার শুরু করলে বাচ্চু তাকে ছেড়ে দেন। পরে শিশুটি বাড়িতে গিয়ে মায়ের কাছে পুরো ঘটনা খুলে বলে। শিশুটির পরিবার স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে সদর থানার পুলিশে খবর দেন। সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল মোতালেব ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাচ্চুকে আটক করেন। রাত ১০টার দিকে শিশুটিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ।

শিশুটির মা প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনাটি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানিয়েছি। কিন্তু তাঁরা কোনো সাড়া দেননি। তিনি অভিযোগ করে বলেন, এ ঘটনার পর বাচ্চু নামে ওই ব্যক্তি একজনকে দিয়ে ৫০০ টাকা পাঠিয়ে ঘটনাটি রফাদফা করার প্রস্তাব দিয়েছেন।
পাওয়ার হাউস রোড এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, বাচ্চু নামে ওই ব্যক্তি শিশুদের দিকে কুদৃষ্টি দেন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বলেন, বাচ্চুর বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার লিখিত অভিযোগ দিয়েছে শিশুটির পরিবার। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ওই শিশুকে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*