জীবনের একটা সময় গেছে যখন প্রতিনিয়ত নিজের শরীর নিয়ে লড়াই চালিয়েছি।

বলিউড অভিনেত্রী মানেই ছিপছিপে গড়ন আর আকর্ষণীয় হতে হবে। অনেক দর্শকের এমনই ধারণা থাকে। তবে এই বিষয়টিকে যিনি ভুল প্রমাণিত করেছেন তিনি হলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিদ্যা বালান।

আর জনপ্রিয় এই অভিনেত্রীর আজকের অবস্থানে আসতে বেশ বেগ পোহাতে হয়েছে। পদে পদে মানুষের আঘাত পেয়েছিলেন তিনি। ভারী শারীরিক গঠন তাকে ভুগিয়েছিল কথার আঘাত আর অপমান। সম্প্রতি এসব বিষয় নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি।

বাইরের সমালোচনার পাশাপাশি দীর্ঘ সময়ে বিদ্যা আত্মবিশ্বাসের অভাবে ভুগেছেন। বিদ্যা জানান, ‘জীবনের একটা সময় গেছে যখন প্রতিনিয়ত নিজের শরীর নিয়ে লড়াই চালিয়েছি। খুব রাগ হতো। নিজের শরীরটাকেই ঘেন্না করতাম। চেহারাটা বদলে ফেলতে ইচ্ছা করতো। মনে হতো চেহারাটা বদলে গেলে সবাই আমাকে আপন করে নেবে। ভালোবাসা পাবো সবার থেকে। কিন্তু পরে দেখলাম, মেদ ঝড়িয়েও অনেকের কাছে সমালোচনার পাত্রীই হয়ে থেকে গেলাম। ঠিক করলাম, অন্যের পছন্দ-অপছন্দের জন্যে নিজেকে বদলে ফেলার কোনও মানে হয় না। ধীরে ধীরে নিজের মোটা শরীরটাকেই ভালোবাসতে শিখলাম। দেখলাম অনেক বেশি আনন্দে থাকছি, নিজের চোখেই সুন্দর দেখতে লাগছি।

’ বিদ্যা বালান বলিউডের আলোচিত ভারতীয় মডেল ও চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। ২০০৫ সালে ‘পরিণীতা’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয়েছিল তার। ‘লাগে রহো মুন্না ভাই’, ‘ভুল ভুলাইয়া’, ‘দ্য ডার্টি পিকচার’ ও ‘কাহানি’ হলো তার কয়েকটি উল্লেখযোগ্য সিনেমা। বলিউড চলচ্চিত্রে অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি বাংলা, তামিল, মালয়ালম এবং হিন্দি ভাষার চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। অভিনয়ের জন্য পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, ফিল্মফেয়ার পুরস্কার। এছাড়া তাকে ২০১৪ সালে ভারত সরকার কর্তৃক দেশের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পদ্মশ্রী পদক দেয়া হয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*