ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন সামিট এ্যাওয়ার্ড প্রদান করলো বিডিএসআইএফ

গত ২৫ জানুয়ারী রাজধানী ঢাকার ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট অডিটোরিয়ামে উদ্যোক্তা, উদ্ভাবন, প্রযুক্তিগত দক্ষতা বা পেশা নির্ধারন সহায়ক পরামর্শ, ও দিক নির্দেশনামূলক দিনব্যাপী এই সামিট অনুষ্ঠিত হয় ।
ভবিষ্যতের জন্য দক্ষতা- সামাজিক উদ্ভাবন এবং ডিজিটাল দক্ষতা বিকাশের জন্য জাতিসঙ্গের টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জনে অংশীদারীত্ব”- প্রত্যয়ে “বাংলাদেশ ডিজিটাল সোসাল ইনোভেশন ফোরাম’ প্রথমবারের মতো আয়োজন করে ”বাংলাদেশ ডিজিটাল সোসাল ইনোভেশন সামিট-২০১৯”।
বাংলাদেশ ডিজিটাল সোশ্যাল ইনোভেশন সামিট ২০১৯, তরুণ ও বেকার তথ্য প্রযুক্তিতে সম্পৃক্ত করাসহ আইসিটি এবং ইনোভেশনকে কাজে লাগিয়ে দারিদ্রতা দূর করা ও সামাজিক বিপ্লব নিশ্চিত করা সহ সম্মৃদ্ধ বাংলাদেশ তৈরি করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।
এছাড়া অনুষ্ঠানে দেশের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য তরুণ ও সামাজিক উদ্যোক্তাদের পুরস্কার প্রদানের মাধ্যমে সম্মানিত করা হয়। এই সামিটে আলোচক হিসাবে ছিলেন সোলায়মান সুখন, ইকবাল বাহার, কাজী হাসান রবিন, নাশিদ আলী , সোবহান চৌধুরী, প্রীতু রেজা, সহ দেশ সেরা বিভিন্ন আলোচক আলোচনা করেন।
আরজে সাইমুর রহমানকে ডিজিটাল প্লাটফম বিশেষ অবদান রাখায় তাকে এই সম্মাননা দেওয়া হয়। রেডিও স্বদেশ ও স্বদেশ নিউজ২৪, স্বদেশ.টিভি এর প্রতিষ্ঠাতা সাইমুর রহমান ইতিমধ্যে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন। আরজে সাইমুর রহমান ডিজিটাল প্লাটফর্মে একটি জনপ্রিয় মুখ।
সামিট এর আয়োজক হাইওয়ে আই টি এর সিইও আলী আকবর আশা বলেন – “সামাজিক উদ্ভাবন এবং ডিজিটাল দক্ষতা বিকাশের জন্য জাতিসঙ্গের টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জন সহায়ক ভূমিকা পালন করবে এ আয়োজন ”
আয়োজক ও হাইওয়ে আই টির ভাইস প্রেসিডেন্টমোস্তফা কামাল সোহেল উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন- “প্রথমবারের আয়োজিত বাংলাদেশ ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন সামিট সকলের মধ্যে এক সম্ভাবনার সুযোগ উন্মোচিত হবে,তারই ধারাবাহিকতায় সারা বাংলাদেশে বিভাগীয় পর্যায়ে ক্রমান্বয়ে সচেতনা জন্য বাংলাদেশে ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন ফোরাম এ আয়োজন করবে।”
আয়োজক ও হাইওয়ে আই টির ভাইস প্রেসিডেন্ট মোঃ মাসুম খান জানান- “আমারা জাতিসংঘের টেকশই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের নিয়োজিত বাংলাদেশ ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন ফোরাম, আমাদের পরবর্তী প্রোগ্রাম আগামী ১ মার্চ খুলনায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।ইনশাল্লাহ খুলনায় আরো বড় পরিসরে এ আয়োজন করা হবে”।
জাতিসংগের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার স্বেচ্ছাসেবক ও হাইওয়ে আই টির ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম বলেন, আমাদের যুব সমাজ এখন অনেক সচেতন ও প্রযুক্তিগত কাজে অনেক বেশি উৎসাহী । পেশা নির্ধারন সহায়ক প্রযুক্তিগত দক্ষতা, পরামর্শ ও অনুপ্রেরণা পেলে, আমি বিশ্বাস করি দেশের যুব সমাজ খুব অল্প সময়ে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও সম্মৃদ্দির শীর্ষ স্থানে পৌঁছানো সম্ভব হবে।
বাংলাদেশ ডিজিটাল সোশ্যাল ইনোভেশন ফোরাম’-এর আয়োজক বৃন্দ জানান, জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সামাজিক উদ্ভাবন ও ডিজিটাল দক্ষতা অর্জনে ভূমিকা রেখে চলেছে যে সকল ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠান সল্প সময়ে উদ্যোক্তা,সামাজিক উদ্বাবন,ব্যবসায়িক সফলতা দক্ষতা ও সাফ্যল রেখেছেন তাদেরকে বাংলাদেশ ডিজিটাল সোস্যাল ইনোভেশন সামিট ২০১৯ সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*