আট উইকেট হারাল উইন্ডিজ, তাইজুলের পাঁচ উইকেট

জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা উইন্ডিজ শিবিরে শুরুতেই বড় ধাক্কা দিয়েছে বাংলাদেশ। সাকিবের জোড়া আঘাতের পর দুই উইকেট তুলে নেন তাইজুল। এরপর আরও উইকেট তুলে নেন মিরাজ। পরের তিন উইকেট নেন তাইজুল। বাংলাদেশের দেওয়া ২০৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে স্পিন ঘূর্ণিতে কাঁপছে তারা। সর্বশেষ খবর পর্যন্ত ৮ উইকেট হারিয়ে ৭৫ রান তুলেছে সফরকারীরা। তাইজুল ইসলাম নিয়েছেন পাঁচ উইকেট।

চতুর্থ ইনিংসের তৃতীয় ওভারে এসে বাংলাদেশ অধিনায়ক প্রথমে কিয়েরন পাওয়েলকে তুলে নেন। এর পরের ওভারে এসে ফেরান শাই হোপকে। আর তাইজুল তার প্রথম ওভারে এসে তুলে নেন ওপেনার ক্রেগ ব্রাথওয়াট ও রেস্টন চেজকে। নিজের প্রথম বলেই ক্রেগ ব্রাথওয়াটকে ফেরান তিনি। আর পঞ্চম বলে ফেলান চেজকে। এরপর প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসে দ্রুত রান তোলা হেটমায়ারকে ফেরান মেহেদি মিরাজ। তাইজুল বল হাতে ফেরান ডাউরিচ ও বিশুকে । পরে এলবিডব্লিউ করেন কেমার রোচকে।

তৃতীয় দিনের সকালের সেশনেই ৯ উইকেট হারিয়েছে দু’দল। শুরুতে ৫ উইকেটে ৫৫ রান নিয়ে ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ। শুরুতেই উইকেট হারাতে থাকা তারা। এরপর শেষ ইনিংস শুরু করা ওয়েস্ট ইন্ডিজ ষষ্ঠ ওভারের মধ্যে হারায় ৪ উইকেট।

এর আগে বাংলাদেশ তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১২৫ রানে অলআউট হয়ে যায়। দলের হয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে সর্বোচ্চ ৩১ রান করেন মাহমুদুল্লাহ। এছাড়া মুশফিক ১৯ এবং মিরাজ করেন ১৮ রান। মিঠুনের ব্যাট থেকে আসে ১৭ রান। দুই ইনিংসে মিলিয়ে ২০৩ রানের লিড পায় বাংলাদেশ। এর আগে প্রথম ইনিংসে ৩২৪ রান তোলে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে সফরকারীরা আউট হয় ২৪৬ রানে। বাংলাদেশ লিড পায় ৭৮ রান।

বাংলাদেশের হয়ে প্রথম ইনিংসে দারুণ এক সেঞ্চুরি করেন মুমিনুল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে হেটমায়ার ও ডাউরিচ করেন ৬৩ করে রান। বাংলাদেশের হয়ে নাঈম হাসান প্রথম টেস্টে নেন ৫ উইকেট। সাকিবের দখলে যায় ৩ উইকেট। এছাড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেট নেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। দ্বিতীয় ইনিংসে বিশু ৪টি এবং চেজ নেন ৩ উইকেট।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*